প্রায় সাড়ে ৮০০ কোটি টাকা পাচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড

তাসকিন আফতাব স্পোর্টস রিপোর্টার
মঙ্গলবার, ১৪ জুন ২০২০, সন্ধ্যা ৬:১৫

ক’রোনা ভাইরাসের কারণে মাঠে ক্রিকেট না  থাকায় আর্থিক সংকটে ভুগছে ভারত সহ বিশ্বের সব-কটি ক্রিকেট বোর্ডই। যদিও ওয়েস্ট ইন্ডিজ- ইংল্যান্ড সাউদাম্পটন টেস্ট দিয়ে মাঠে ক্রিকেট ফিরেছে তবে বাকি দেশগুলো এখনো বসে আছে। এদিকে আইপিএলের এই মৌসুম মাঠে না গড়াতে বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হবে ক্রিকেটের শক্তিশালী ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

তবে ক্রিকেটের এই ক্লান্তিকালে বড় সুখবর পেতে যাচ্ছে বিসিসিআই। প্রায় ১০ বছরের পুরনো দুর্নীতি মামলা জিততে চলছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। ফলে একটি এসক্রো অ্যাকাউন্টে পড়ে থাকা প্রায় সাড়ে ৮০০ কোটি টাকা এবার নিজেদের কাজে খরচ করতে পারবে বিসিসিআই।

২০১০ সালে তৎকালীন আইপিএল কমিশনার থাকাকালীন লোলিত মোদি ভারত ছাড়া বাকি বিশ্বে টুর্নামেন্টের সম্প্রচার স্বত্ত্বের জন্য ওয়ার্ল্ড স্পোর্টস গ্রুপের সঙ্গে চুক্তি করেছিলেন। প্রায় ৮০০ কোটি টাকার সেই চুক্তিটি হয়েছিল বিসিসিআইকে না জানিয়েই। চুক্তির বিষয়টি পুরোপুরি নিজের মধ্যে গোপন রেখেছিলেন লোলিত মোদি। আইপিএলের গভর্নিং কাউন্সিলকেও এই চুক্তির ব্যাপারে জানানোর প্রয়োজন বোধ করেননি তিনি।

পরে ওয়ার্ল্ড স্পোর্টস গ্রুপের সঙ্গে ললিত মোদির ওই চুক্তিতে দুর্নীতির গন্ধ পান তৎকালীন বোর্ড সচিব এন শ্রীনিবাসন। সে সময়ের বিসিসিআই সিইও সুন্দর রমনের সঙ্গে আলোচনার করে তিনি ওয়ার্ল্ড স্পোর্টস গ্রুপের থেকে আইপিএল সম্প্রচার স্বত্ত্ব কেড়ে নেন। তারপর ললিত মোদির উপর দুর্নীতির অভিযোগ এনে আইপিএল কমিশনার পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। বিসিসিআই-এর এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ওয়ার্ল্ড স্পোর্টস গ্রুপ।

প্রায় ১০ বছর পর সেই মামলার নিষ্পত্তি করল সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত ট্রাইবুন্যাল। তিন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির ট্রাইবুন্যালে ওয়ার্ল্ড স্পোর্টস গ্রুপের সঙ্গে বিসিসিআইয়ের চুক্তিভঙ্গের সিদ্ধান্ত বহাল রাখা হয়েছে। সেই সঙ্গে জানানো হয়েছে, এসক্রো অ্যাকাউন্টে থাকা ৮০০ কোটি টাকা ৭ বছরের ঋণ–সহ এখন থেকে ব্যবহার করতে পারবে ভারতীয় বোর্ড।

ফলে ৮৫০ কোটি টাকা চলে গেলো বিসিসিআই- এর জিম্মায়। এমনকি লোলিত মোদির দুর্নীতির অভিযোগেও একই সঙ্গে সিলমোহর পড়ে গেল। এতেই পরিষ্কার হয়ে গেল তৎকালীন বোর্ড সচিব শ্রীনিবাসন মোদিকে পদ থেকে সরিয়ে দিয়ে সঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছিলেন। ট্রাইবুন্যালে জয়ের পর বিসিসিআইয়ের আইনজীবী লোলিত মোদির বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করার আবেদন জানিয়েছেন।